ঈদের চাঁদ || শফিক নোমানী

ঈদের চাঁদ
শফিক নোমানী
রমজানেরই রোজার শেষে 
ঈদের চাঁদ ওঠল হেসে,
বছর ঘুরে আসল আবার ঈদ।
মিষ্টি চাঁদের হাসি দেখে,
খুশির জোয়ার সবার মাঝে,
ঈদের খুশি বপন করো,
গরীব-দুঃখীর মাঝে।
হৃদয়কে করে আলো,সবারে বাসো ভালো,
যেন দূরীভূত হয় তব মনের কালো।
ঈদের খুশি দাও ছড়ায়ে,
বিশ্ব সমাজে।
Tagged : / /

সুরভিত অতীত || ফারজানা শারমিন

সুরভিত অতীত
ফারজানা শারমিন
অনেকদিন পরে ঝরছে মেঘ হৃদয়ের আকাশে
ঝরছে অশ্রু এ নয়ন তরে
অনেক সাধের স্বপ্ন খুঁজে চলেছে চোখের পান্থশালায়,
সে কোন আলোর মায়া ভরিয়ে গেল হৃদয়ে
সেই ভাঙ্গা স্বপ্ন নিয়ে বুকে,
হেঁটে চলেছি আমি
জানি না কোথায় কিসের সন্ধানে,
জ্বলে কিসের দহনে
সব পুড়েছে কিছুই আর নেই বাকি,
সুরভিত অতীত জানে ওই মিলন বিন্দুর মাঝে রয়েছে
কতো স্বপ্ন কত কাহিনী,
কত রাতের চন্দনময় সুবাস আছে লুকায়ে।
Tagged : / /

আসবে মরণ || শফিক নোমানী

আসবে মরণ
শফিক নোমানী
জানিনা যে আমি কখন
আসবে আমার মরণ,
সেদিন আমার আপনজন
       সবে হবে পর।
  মা- বাবা আত্নীয়- স্বজন  করবে আহাজারি,
সম্পদ নিয়ে সন্তানাদি  করবে খারাখারি।
 কবরেতে রেখে
আসবে সবাই চলে
তিনদিন পরে তারা সবাই
যাবে মোরে ভুলে।
কবরে যাবার আগে 
ভেবে দেখ মন
কাদের জন্য করছ তুমি
রঙ্গিন আয়োজন।
Tagged : / /

মিছে স্বপ্নের জাল বুনি || ফারজানা শারমিন

মিছে স্বপ্নের জাল বুনি
ফারজানা শারমিন
তোমার পথ হতে কতোটা দূরত্বে আমি
তারপরও তুমি ছুঁয়ে থাকো আমার প্রতিটি প্রহর,
আমি স্বপ্নে বিভোর,
তোমার নামেই প্রতিটি নিঃশ্বাসে,
যেন ছুঁয়ে থাকো চোখ বুজে প্রতিটি বিশ্বাসে,
কি নির্বোধ আমি !
ভেবেছিলাম তুমি বুঝি আমারই রবে আজীবন,
অথচ এই মিথ্যে স্বপ্নের জাল বুনে যাই সারাক্ষণ
এতটুকু ভাবিনি মিছে খুঁজি তোমাকে পথ চেয়ে রই
আমি তো তোমার কেউ নই কিচ্ছু নই,
আমি হয়তো তোমার যোগ্য নই ।
এক বুক যন্ত্রণা নিয়ে খুঁজেছি কতোবার,
দুঃখ গুলো জমে থাকুক আমার বুকে,
তোমার জন্য সুখের সময় থাকুক পদ্মরাগে ।
কি নির্বোধ আমি !
মিছে স্বপ্নের জাল বুনি,
সমস্ত স্মৃতি গুলো পরম মমতায় আগলে রাখি ।
Tagged : / /

আমার জন্ম ভূমি || শফিক নোমানী

আমার জন্ম ভূমি
শফিক নোমানী
বাংলা আমার জন্ম ভূমি
বাংলা আমার প্রাণ,
বাংলা আমার স্বপ্ন আশা বাংলা খোদার দান।
বাংলা আমার মাতৃভাষা
বাংলা মায়ের অবদান,
কৃষকের কন্ঠে শুনি আমি বাংলা মায়ের গান ।
বাংলা আমার বেঁচে থাকা বাংলা আমার সুখের আশা, বাংলা আমার দুঃখ।
বাংলা আমার কাব্য ছড়া, বাংলা আমার দেশ।
বাংলা আমার ভালবাসা
বাংলা আমার রত্ন আশা, ভালবাসার রেশ।
Tagged : / /

অপেক্ষা || ফরিদ সরকার


অপেক্ষা
ফরিদ সরকার
তুমি আসবে বলে;
অপেক্ষায় এ ধূসর ভূবন,
তুমি আসবে বলে।।
তুমি আসবে বলে;
চলছে এই পরিবর্তনের স্রোতধারা,
শুধু তুমি আসবে বলে।।
নিরবতা,স্তব্ধতা,হৃদয়ের সকল ব্যাকুলতা ধমকে;
তুমি কি সত্যিই আসবে?
তুমি আসবে বলে;
প্রকৃতি চির শুভাসিত,
আর শত সহস্র রঙ্গিন ফুলে সেজেছে মোর হৃদয় কানন-
শুধু তুমি আসবে বলে।।
তুমি আসবে বলে;
উচ্ছাসিত মোর সকল কৃর্তি।
তুমি কি ভিড়বে না এ ভূবনে?
Tagged : / /

আপেক্ষিক || ফরিদ সরকার

আপেক্ষিক

Person
Farid Sarkar

সফলতা কি?
আপেক্ষিক __
চিন্তা কেন্দ্রিক,
তৃপ্ততা ভিত্তিক।
কেহ খেয়ে বাঁচলে,
কোটি টাকাতে, বিলাসে।
ক্ষমতা প্রয়োগে __
অপব্যবহার?
আপেক্ষিকতার সূত্রে ;
আহ্ তুমি তো পিশাচ,
ভণ্ড, প্রতারক, বেইমান।
গুনিলে; শূন্য হাতিয়ার!
সফলতা কোথায় তাহলে?
আসলে চাওয়াতে;
আত্ম তৃপ্তি উর্ধ্বে।
যত বৈচিত্র্য ইচ্ছে ;
ডাক্তার মুখে মুখে,
পূর্ব ধারার ধাচে।
অফিসার, কেরানি বটে;
আপেক্ষিকতার সূত্র কষে,
শেষটা ব্যক্তি বেদে।

Tagged : / /

অচেনা প্রান্তর || ফরিদ সরকার

অচেনা প্রান্তর

Person
Farid Sarkar

এসেছি অচেনা প্রান্তরে,

এ প্রান্তর বড় অপেক্ষার।

আবার কখোনো লজ্জার!

তবে নয়তো থামাবার!

কখনো দেওয়ালে লিখন প্রশ্ন,

আবার কখনো আচমকা উত্তর!

বস্তুত সময়ের বড়ই অভাব!

বারি বিচিত্র কর্মভার।

আশা, সফলতা অনেকটাই দুর্বার,

মন তো! কিঞ্চিৎ হলেও হয় প্রফুল্ল

স্নেহময়ী ভালোবাসার ছোঁয়ায়!

সু- আজ্ঞা সময় তোমার,

করে নিও তৃপ্ত সফলতায়।

Tagged : / /

অ্যাফ্লিক্টেড বোবা || ফরিদ সরকার

অ্যাফ্লিক্টেড বোবা

Person
Farid Sarkar

কোন এক সন্ধায় গুরুজন কহিলেন,

চলো! একটু ঘুরে আসি স্বপ্ন বাগানে।

নির্দেশ রক্ষার্থে চল্লাম অজানা নীড়ে।

যে প্রবেশদ্বার অসম্ভব, তাহা হয়লো

উন্মুক্ত গুরুকুল সংস্পর্শে হাসিমুখে!

অভিবাদান্তে স্বপ্নমাতা শুনান বিষন্নতা!

বিষন্নতায় অগ্রাধিকার পেল প্রচেষ্টা

‘না’ কথাটি যেন সত্যিই তাঁর অজানা।

ঠিক যেন তিনি একাত্তরের মুক্তিযোদ্ধা।

স্বপ্নমাতার কার্যগতি যেন টার্গেট বুলেট!

অকল্পনীয় তার চিন্তাজগত যেন উন্মাদ,

গুরুকর্তৃক, হলাম স্বপ্নমাতার সহযোদ্ধা।

স্বপ্নমাতার স্বপ্ন কি! নয় বাড়ী বানানো,

বিলাসবহুল গাড়ীর মালিক, ইচ্ছে যত

তাঁর অপত্যের গৌরবময় সাফল্যে!

কিন্তু!অলসতা ছাড় দেয়নি

তাঁর অবিচ্ছেদ্য ধারাকে!

ধীমান মা কর্মে বিশ্বাসী, দেন ধমক!

কখনো ভালোবাসাযুক্ত মৃদু কন্ঠে!

আবার কখনো অভিমানী সুরে!

ঝড় শুরু হয় যখন তাকে না বুঝে।

এ যেনো চিড়িয়াখানার বন্দীশালা,

যেখানে অসম্ভব মুক্তমনা, সৃজনবাদ।

স্নেহ নেহাত মন্দ নয়, নয় ভালোবাসাও

তাইতো খাটে না কোন অজুহাত!

এটা কি ইমোশনালি ব্ল্যাকমেইল না?

না পারি কইতে আর না পারি সইতে

ঠিক এমনই করুণ দশা স্নিগ্ধার!

Tagged : / /

কলমের শক্তি || ফরিদ সরকার



কলমের শক্তি

Person
Farid Sarkar

মসীতে শক্তি? পৃথিবী জয়__

অসৎ খুজে লোকালয়

অবরুদ্ধ, কালোরঙ,

আলোয় অস্পর্শ অন্ধকার লোকালয়।

বন্দুকে জয় ভূখণ্ড, মসীতে বিশ্ব জয়।

আফসোস মসীতেই নৈতিক অবক্ষয়,

কোথায় বাহুবল? ভেঙ্গে ফেল্,

ভেঙ্গে ফেল্ আঙ্গুলদ্বয়।

কিন্তু সাবধান, কলমটি নয়।

পারলে বাঁকা করে দে

সত্যের ময়দানে কলমের ঘূর্ণন।

ভণ্ডামি করেছে অমানুষ

এই ভণ্ড, ছাড়িস নি কলম?

নাকি খাবি থাপ্পড়?

কলঙ্কিত হস্তে বন্দুক তোর!

হতে চাস কেমনে যুদ্ধে সফল?

লজ্জা থাকার বিষয়____

জিতবি যে আছে প্রেম বিনিময়?

আরে গাধা প্রেমে থাকে মিল রং,

কই মিল? হস্ত তোর কলঙ্কিত,

অথচ

হস্তে কলমটি তোর পাপ মুক্ত।

পবিত্র হাতে ধর করতে পারবি বিশ্বজয়।

পবিত্র!

এ আবার কি?

সোজা উত্তর ভালো চরিত্র।

Tagged : / /